বাচ্চাকে কত ঘন ঘন গোসল করানো উচিত?

সন্তানকে প্রথম গোসল করানোর দিন সকল মা-বাবার জীবনেই এক সুখস্মৃতি থাকে। তবে তা যে একেবারে মসৃণ ছিল, এমনটা হয়তো কেউ বলবেন না। অধিকাংশ বাচ্চাই গোসলের প্রতি চরম অনীহা দেখায়। 

গোসল করানোর সময়টুকু যে প্রায় যুদ্ধের সমান, এ কথা বললে হয়তো অত্যুক্তি করা হবে না। অনেক মা-বাবাই চেষ্টা করেন প্রতিদিন বাচ্চাকে গোসল করাতে। কিন্তু তা কি আদৌ আপনার বাচ্চার জন্য ভাল?

সম্প্রতি তারকাদের একটি টক শো তে, হলিউড জুটি অ্যাশটন কুচার-মিলা কুনিস বলেছেন প্রতিদিন নিজের সন্তানকে গোসল করাতে চান না তারা। কুচারের নিজের কথায়, ‘যদি ওদের শরীরে ময়লা দেখতে পান, তাহলে পরিষ্কার করে দিন। তা ছাড়া কোনও প্রয়োজন নেই।’ এমন বক্তব্যের জন্য তারা যেমন সমালোচনার মুখে পড়েছেন, তেমনই প্রশংসাও পেয়েছেন বাস্তববোধের জন্য।

বিশেষজ্ঞরাও কিন্তু প্রতিদিন গোসল করাতে নিরুৎসাহিতই করছেন। তার কারণ এর ফলে ত্বকের স্বাভাবিক তৈলাক্ত ভাব চলে যায়। ত্বক হয়ে পড়ে রুক্ষ ও শুষ্ক। অনেকক্ষণ পানি, সাবান বা শ্যাম্পুর সংস্পর্শে ত্বকে অস্বস্তি হয় বলে বাচ্চারাও ধৈর্য হারায় সহজেই। বিশেষজ্ঞদের মতে, চার থেকে পাঁচ বছর বয়স হওয়ার আগ পর্যন্ত সপ্তাহে এক থেকে দু’বার গোসল করালেই তা বাচ্চার পক্ষে যথেষ্ট। বাচ্চাকে খেয়াল করে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখলে প্রতি দিন গোসল করানোর ঝামেলা নেওয়ার কোনও প্রয়োজনই নেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, বাচ্চার বয়স যদি হয় ৬ থেকে ১১ এর মধ্যে হয়, তা হলে সে স্বাভাবিক ভাবেই বাইরে আরও বেশি সময় কাটাবে, তাই এ ক্ষেত্রে নিয়মিত গোসল করানো প্রয়োজনীয় হয়ে পড়বে। তাছাড়া, এই সময়ের মধ্যে বয়স বাড়ার কারণেই আপনার বাচ্চার ত্বক আরও পরিণত হয়ে যাবে, ফলে প্রতিদিন গোসলের কোনও ধকল পড়বে না শরীরে।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

পাঠকের মন্তব্য