জবিতে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তিন ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা গ্রহণ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তিন ভর্তিচ্ছুর পরীক্ষা গ্রহণ করেছে জবি কতৃপক্ষ। রোববার (২৪ অক্টোবর ২০২১) দুপুর ১২টা হতে ১টা পর্যন্ত GST (General, Science & Technology) গুচ্ছভুক্ত ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে বি-ইউনিটের (মানবিক শাখা) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

২২টি কেন্দ্রে মোট ৬৭ হাজার ১১৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। তারমধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে অংশ নেন ৭ হাজার ৭৯৩ জন পরীক্ষার্থী।

অংশগ্রহণকরা শিক্ষার্থীদের মধ্যে জবিতে চার জন বিশেষ শিক্ষার্থী আবেদন করলেও অংশগ্রহণ করেছেন তিনজন। এদেরকে জগ্ননাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়।

পরীক্ষার্থী ইসরাত জাহান অনীমা বলেন, ‘শারীরিক প্রতিবন্ধকতার জন্য আমি কর্তৃপক্ষের নিকট  আবেদন করলে তারা আমাকে মেডিকেল সেন্টারে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়। এতে আমাকে কষ্ট করে সিড়ি দিয়ে উপরে উঠতে হয়নি। আমি খুব উপকৃত হয়েছি এবং পরীক্ষাও ভালোভাবে দিতে পেরেছি।’

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মো. সেলিম ভূইয়া শ্রুতি লেখকের সহায়তা চাইলে জবি কর্তৃপক্ষ তা ব্যবস্থা করে দেয়। ফলে শ্রুতি লেখকের সহায়তায় ভাল পরীক্ষা দিয়েছেন বলে জানান সেলিম।এভাবে সহায়তা পেলে ভবিষ্যত জীবনে ভালো করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

আর প্রেগন্যান্সির একদম শেষ সময়ে পরীক্ষার সূচি পড়ায় মেডিকেল সাপোর্টের মাধ্যমে পরীক্ষা দিয়েছেন তাবাচ্ছুম তাবিয়া। যদিও এসময় তিনি অসুস্থ বোধ করেছেন বলে জানান। তিনি বলেন, ‘আমার প্রেগন্যান্সির একদম শেষ সময়ে পরীক্ষার সময়সূচি পড়েছে। তাই আমাকে মেডিকেল সাপোর্টের  মাধ্যমে পরীক্ষা দিতে হয়েছে। তবে, পরীক্ষার সময় আমি অনেক অসুস্থতা বোধ করেছি, কিন্তু ভয়ে আমি কাউকে কিছু বলতে পারিনি। মাঝেমধ্যে কয়েকজন আমার খোঁজ খবর নিয়ে গেছেন।’

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো ইমদাদুল হক বলেন, ‘প্রতিবন্ধকতায় যাতে কোন শিক্ষার্থী থমেকে না থাকে আমরা সে দিকটি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখেছি। আমরা এমন শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহনে উৎসাহিত করি। এ সকল শিক্ষার্থীদের মত অন্যরাও যাতে অনুপ্রাণিত হয় সেজন্য আমরা বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তাদের পরীক্ষা নিয়েছি।’ ভবিষ্যতে বিশেষ শিক্ষার্থীদের জন্য আরও সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো হবে বলেও জানান উপাচার্য।

পাঠকের মন্তব্য