এক ছবিতেই অক্ষয় ঘরে তুললেন ৯৯ কোটি টাকা!

বছর কয়েক হল বলিউডে পারিশ্রমিকের অঙ্ক বাড়তে বাড়তে ১০০ কোটি ছুঁইছুঁই! প্রযোজকদের কাছে অভিনেতারা আকাশছোঁয়া দর হাঁকছেন। পেয়েও যাচ্ছেন এমন বিপুল টাকা। সেই দলেই সামিল অক্ষয় কুমার।

এক সময়ে কোটি টাকা পারিশ্রমিক শুনলেই গায়ে কাঁটা দিত বলিউড প্রযোজকদের। বছর কয়েক হল সেই অঙ্ক বাড়ছে। অভিনেতারা আকাশছোঁয়া দর হাঁকছেন, আবার পেয়েও যাচ্ছেন। বলিপাড়ায় শোনা যাচ্ছে, সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বচ্চন পাণ্ডে’ ছবিতে অক্ষয় কুমারের পারিশ্রমিক ছিল ৯৯ কোটি টাকা!

প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা নিজেই অভিনেতার সঙ্গে আলোচনার পরে এই বিপুল অঙ্কের পারিশ্রমিক চূড়ান্ত করেন। যদিও অক্ষয় নাকি কিছুটা ছাড় দেওয়ার পরে ৯৯ কোটি টাকার বিনিময়ে এই ছবিতে কাজ করতে রাজি হন! আপাতত বলিউডে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক যাদের পকেটে যায়, সেই বৃত্তেরই এক ‘খিলাড়ি’ অক্ষয়।

শুধু অক্ষয়ের বিপুল পারিশ্রমিক নয়, ‘বচ্চন পাণ্ডে’ ঘিরে আরও একটি খবরে সরগরম বলিপাড়া। শোনা যাচ্ছে, প্রেক্ষাগৃহে ছবি মুক্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় এক নামী ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ছবির মুক্তি নিয়ে আলোচনা এগিয়েছিলেন প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা। ১৭৫ টাকার বিনিময়ে ‘বচ্চন পাণ্ডে’র ডিজিটাল মুক্তির চুক্তিও নাকি প্রায় পাকা হয়ে গিয়েছিল। 

ইতোমধ্যে কোভিড পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। প্রেক্ষাগৃহের উপর বিধিনিষেধও শিথিল হয়ে যায়। সে কথা মাথায় রেখেই নাকি ১৭৫ কোটি টাকার সেই চুক্তি বাতিল করে দেন সাজিদ। সিদ্ধান্ত নেন, প্রেক্ষাগৃহেই মুক্তি পাবে ‘বচ্চন পাণ্ডে’।

কোভিডের কারণে যে সব ছবির মুক্তি ধাক্কা খেয়েছিল, তাদের অন্যতম ‘বচ্চন পাণ্ডে’। কথা ছিল জানুয়ারিতে মুক্তি পাবে ছবিটি। করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি এবং প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ ও দর্শকসংখ্যায় রাশ টানার কারণে দিন পিছিয়ে যায়। শেষে শুক্রবার, হোলি উপলক্ষে প্রেক্ষাগৃহে এসেছে ছবিটি। বক্স অফিসের হিসেব বলছে, প্রথম দিনে ছবিটি ব্যবসা করেছে ১৩ কোটি টাকার।

পাঠকের মন্তব্য