জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জা‌বি) শি‌বির স‌ন্দে‌হে দুইজন‌কে আটক করেছে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা। আটককৃত দুজনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী। আটককৃতরা হ‌লেন সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ৪১তম ব্যাচের সাদ শরীফ এবং প্রত্নতত্ত্ব বিভা‌গের ৪২ তম ব্যা‌চের শিক্ষার্থী নূরুল আ‌মিন। দু’জ‌নের বা‌ড়িই লক্ষ্মীপুর জেলায়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের চৌরঙ্গী এলাকা থেকে গোপন ত‌থ্যের ভি‌ত্তি‌তে তাদেরকে আটক করা হ‌য়ে‌ছে।

প্রক্টর অফিস সূত্রে জানা যায়, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনের পূর্ব নির্ধারিত মশাল মিছিল কর্মচলাকালে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। কর্মসূচিকে ঘিরে বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থিতিশীল করার পরিকল্পানা ছিল তাদের।’

তাদের আটকের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘মশাল মিছিলে শিবির ও ছাত্রদল অংশ নিবে এমন তথ্যের ভিত্তিতে আমরা সারাদিন ক্যাম্পাস পর্যবেক্ষণ করতে থাকি। মিছিল চৌরঙ্গী আসলে তাদের দুজনকে গোপন ত‌থ্যের ভিত্তিতে মোটরসাইকেল সহ আটক করি। আটকের পর তাদের মোবাইল ও হোর্টসঅ্যাপে শিবির সংশ্লিষ্ট একাধিক তথ্য পাওয়া গে‌ছে। ‘

এছড়া তা‌দের শি‌বির সং‌শ্লিষ্টতা এবং কোন কোন শিক্ষক টাকা দেয় সে তথ্যও পাওয়া গেছে ব‌লে তি‌নি সাংবা‌দিক‌দের নি‌শ্চিত ক‌রেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত সাদ শরীফ বলেন, ‘আমি কোন সক্রিয় রাজনীতির সাথে যুক্ত নই। চৌরঙ্গী এলাকা থেকে কয়েকজন শিক্ষক আমাদের আটক করেন। ক্যাম্পাসের আন্দোলনের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই।’

আটকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর আশুলিয়া থানায় মামালাসহ করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে প্রশাসন এই অভিযোগে আন্দোলনকারী রাতেই প্রক্টর অফিসে এসে জানতে চাইলে সেখানে মুখোমুখি অবস্থানে উতপ্ত পকিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা প্রক্টর অফিসকে ঘিরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন।

SHARE